নারী’ একটি অন লাইন পত্রিকা। ’নারী’ নারী’র চিন্তাজগত উন্মোচনের অবারিত ক্যানভাস। ’নারী’ নারী’র মানবিক ভারমুক্তির জানালা। ’নারী’ নারী’র বু্দ্ধিবৃত্তিক দ্বিধাহীন প্রকাশের উন্মুক্ত আকাশ। এইটুকু বললে ‘নারী’ সম্পর্কে আরো অনেক কথা বাকি রয়ে যায়। কয়েক হাজার বছরের অধীনতা আর বঞ্চনার পথ পেছনে রেখে এসে নারীবাদী আন্দোলন স্থির হয়েছে তার লক্ষ্যে। সমতা সেই লক্ষ্য।প্রশ্ন উঠতে পারে, হাজার বছরের পরিকল্পিত বৈষম্যের পৃথিবীতে সামাজিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে নারীদের সমতার যে দাবী তা কি লেখালেখি করে অর্জন করা সম্ভব? বাস্তবিক আন্দোলনের পাশাপাশি পুরুষতান্ত্রিক সমাজ শুরু থেকে যে রাজনৈতিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে রন্ধ্রে রন্ধ্রে বৈষম্যের অসংখ্য ল্যাণ্ড মাইন পুতে রেখেছে, সেই ল্যান্ড মাইন সনাক্তকরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে নারীবাদী লেখক এবং তাদের লেখালেখির। নারীর লক্ষ্য অর্জনে, নারীবাদী আন্দোলনের গতি প্রকৃতি ব্যাখ্যায়, কৌশল নির্ধারণের ক্ষেত্রে, বিভিন্ন মত পথের সংযোজন-বিয়োজনের মাধ্যমে, নারীদের সংঘবদ্ধ করার ক্ষেত্রেও পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে নারীবাদী পত্রিকাগুলো শুরু থেকেই পালন করে এসেছে পরীক্ষণ ল্যাবরেটরীর ভূমিকা।

আজকের নারীবাদী আদর্শের যে ভিত্তি, সেই ভিত্তিও গড়ে উঠেছিলো বিশ্বের বিভিন্ন নারীবাদী লেখকদের লেখালেখির মধ্য দিয়েই। নারীবাদের জনক মেরি ওলস্টোনক্র্যাফ্ট অষ্টাদশ শতকে তাঁর লেখাতেই উচ্চারণ করেছিলেন- “দয়া নয় পৃথিবী চায় ন্যায় বিচার।” নারীবাদের সুস্পষ্ট উদ্দেশ্যই প্রকাশিত হয়েছিলো এই বাক্যে। একই শতকে নারীবাদের  আরেক পথিকৃত সিমন দ্য বোভোয়ার তাঁর লেখালেখিতেই সেই সময়ের পুরষতান্ত্রিক সমাজে নারীকে অধীন করে রাখার  রাজনীতিকে সনাক্ত করেছিলেন এই বলে –“কেউ নারী হয়ে জন্ম নেয় না, বরং হয়ে উঠে নারী।” নারীবাদের এই পথিকৃতদ্বয় যে সমাজের, যেই দেশের, তাঁদের হাত ধরেই সেই সমাজে, সেই দেশে নারীবাদ আজ প্রতিষ্ঠিত একটি বিষয়।

কাজেই সমতার লক্ষ্য অর্জনে, নারীবাদী লেখকদের লেখা, যুক্তিতর্কে, মানবিক চর্চায়, মুক্তচিন্তার নির্ভীক প্রকাশে ‘নারী’ পত্রিকা হয়ে উঠবে তত্ত্ব ও তথ্যের পরীক্ষণাগার। আজকের বাংলাদেশে পুরুষতান্ত্রিক কূপমণ্ডূক সমাজের কটাক্ষ এবং রাষ্ট্রের বিচারহীন সংস্কৃতির  বিরুদ্ধে নারীবাদীদের বুদ্ধিবৃত্তিক সঙ্ঘবদ্ধতার মাধ্যমে, রণকৌশল নির্ধারণ করার প্রয়োজন অনস্বীকার্য হয়ে পড়েছে। নারীবাদী আদর্শের লেখক তাত্ত্বিকদের জন্য সেই  রণপরিকল্পনার ম্যাপ হয়ে উঠুক ‘নারী’ পত্রিকা। এই আমাদের প্রত্যাশা!

 

ফেসবুকে আমরা