নারীর ক্ষমতায়নের রোল মডেল কারা?

সোমবার, মার্চ ৪, ২০১৯ ৪:০৯ PM | বিভাগ : সাম্প্রতিক


নারী দিবস উপলক্ষ্যে একজন নারী ইউটিউবার কে আইকনিক ধরে, "নারীর ক্ষমতায়ন" নাম ভূমিকায় প্রচ্ছদ করেছে একটি বিনোদন ধর্মী ম্যাগাজিন পত্রিকা। অনেকগুলো বিষয়, এখানে আসলে তর্কে বিতর্কে উঠে এসেছে।


ছোট থেকেই আমি যে বিচিত্রা-বিনোদন ম্যাগাজিন পড়ে এসেছি বা উলটে পালটে দেখেছি, সেখানে নারীর রূপ চর্চা, ফ্যাশন, রান্না বান্না, আরো আধুনিক নানান বিষয় উল্লেখ করা থাকতো। আমি যখন কিশোরী তখন কিছু প্রোডাক্ট এর নাম এই পত্রিকাগুলো থেকে জেনেছি যেগুলো আমি আমার মধ্যবিত্ত মা'কে কখনো ব্যবহার করতে দেখি নি। এই যেমন, শ্যাম্পুর পর কন্ডিশনার লাগানোর কথা, ক্লিনজার, টোনার, ময়েশ্চারাইজার লাগানোর কথা, ম্যানিকিউর, প্যাডিকিউর, ও্যাক্সিং ইত্যাদি। ফ্যাশনে যে কাপড় পরিহিত মডেলরা ছিলো, আমার মা, খালা, পাশের বাসার আপু, তার ভাবী, আমার বান্ধবীরা তারা কেউ এই কাপড়গুলো পরে নি কখনো, তাদের শারীরিক গঠনও তেমন ছিলো না। অথচ, তাদের বাসায় এই মাগাজিনগুলো নিয়মিত আসতো, তারা পড়তো, উলটে পালটে দেখতো এবং তাদের ভেতরে নিজেদের এমন রূপে দেখার একটা দীর্ঘশ্বাস ছিলো। যে রান্নাগুলো সেই ম্যাগাজিনে থাকতো, যেমন ধরি কেক, সেই কেক করতে যে ওভেন লাগে, সেটা আমাদের মধ্যবিত্ত সমাজে ছিলো না। আমি যে সময়ে বড় হয়েছি, সেই মফস্বলে, যাদের বাড়িতে ফ্রিজ থাকতো তারা বড়লোক ছিলো। যাদের বাড়িতে ওয়াশিং ম্যাশিন, ওভেন থাকতো, যারা কেক বাড়িতে বানিয়ে খেতো, যাদের মায়েরা ম্যাগাজিনের রান্না গুলো দেখে বাসায় বিরিয়ানি রাঁধতে পারতো তারা বড়লোক ছিলো এবং সেই ম্যাগাজিন খুলে আমি যাদেরকে দেখি, যারা সেই ম্যাগাজিনের সব নিজের জীবনে প্রয়োগ করতে পারে তারা সমাজের উচ্চতর ধনীক শ্রেণি।

রাবা খান যদি নারীদের ক্ষমতায়নের রোল মডেল হয়ে থাকেন, তবে তিনি সেই নারীদের রোল মডেল, যারা সমাজের উচ্চ শ্রেণি থেকে আগত। তিনি নিজেও এমন পরিবার থেকে এসেছেন, তার ইউটিউবের ভিডিওগুলো দেখলে সেটা বোঝা যায়। তিনি নানান মজার ভিডিও বানান এবং ইউটিউবে পোস্ট করেন। হ্যাঁ বাংলাদেশে এইরকম আধুনিক উদ্যোগ নেয়ার জন্য এবং পুরুষ শাষিত সমাজে নিজের একটা জায়গা করে নেয়ার জন্য তাকে অভিবাদন জানাতেই হয়।

আমাদের অফিসের ইয়াসমিন, রিসিপশনে নারী গার্ড হিসেবে বসে। সে এসেছে একটা দ্বীপ থেকে। মহেশখালী। সে সিদ্ধান্ত নিয়েছে গার্ড এর চাকরি করবে, কারণ তার পরিবারকে তার সাহায্য করতে হবে এবং সে অর্থ উপার্জন করে নিজের জীবন কে গোছাতে চায়। আসলে, সে হচ্ছে নারীর ক্ষমতায়নের আইকনিক রোল মডেল।

আমাদের বাসার হালিমা আপা, বাড়ি বাড়ি কাজ করে তিনি একটা ফ্রিজ কিনতে পেরেছেন এবং খেটে খুটে সেই ফ্রিজের কিস্তির টাকা শোধ করেছেন। সত্যিকার অর্থে তিনি হচ্ছেন নারীর ক্ষমতায়নের রোল মডেল।

নারীর ক্ষমতায়ন শ্রেণি ভিত্তিতে পরিবর্তিত হয়ে যায়। অনেক পরিবারে নারী আছেন যিনি হয়তো ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, ভালো চাকরি করেন, কিন্তু স্বামী ছাড়া তিনি এক পাও নড়তে পারেন না। নিজে নিজে সিদ্ধান্ত নেয়ার কোনো সুযোগ বা ক্ষমতা তার নেই, সেই পরিবারের ওই নারীটিকে আপনি কি ক্ষমতাবান বলবেন?

যে চর্চা উচ্চবিত্ত সমাজে করা যায়, সেই একই চর্চা কোনো নারী যিনি কিনা মধ্যবিত্ত বা নিম্নবিত্ত সমাজে বাস করেন তিনি করতে পারেন না। উচ্চবিত্ত শ্রেণি থেকে আগত একজন নারী নিজের পায়ে দাঁড়িয়েছেন, এতে যারা গর্বিত এবং নারীর ক্ষমতায়ন হয়ে গেছে বলে তৃপ্তির ঢেঁকুর তুলে, তারা আসলে সেই রবিন হুডের সাপোর্টার যিনি ধনীদের টাকা লুট করে ধনীদেরই দেন।

কান্দিল বেলুচের নাম মনে পড়ছে। সেও ইউটিউবে, ফেসবুকে বেশ আবেদনময় ভিডিও পোস্ট করতো। তাকে তার ভাই নিজ হাতে খুন করে, অনার কিলিং এর নামে।

পুঁজিবাদ এর কাজই হচ্ছে সব কিছুকে বাজার পণ্যে পরিণত করা। তাই আজকে রাবা খান নারীর ক্ষমতায়নের রোল মডেল, ইয়াসমিন কিংবা হালিমা'রা না।

নারীর ক্ষমতায়ন, সমতার লক্ষ্য সুদীর্ঘ সংগ্রামের। একদিন আমরা জয়ী হবো। সেদিন ক্যালেন্ডারের প্রতিটি দিনই আমাদের হবে।


  • ৩০৮ বার পড়া হয়েছে

পূর্ববর্তী লেখা পরবর্তী লেখা

বিঃদ্রঃ নারী'তে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার বিষয়বস্তু, ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়া ও মন্তব্যসমুহ সম্পূর্ণ লেখকের নিজস্ব। প্রকাশিত সকল লেখার বিষয়বস্তু ও মতামত নারী'র সম্পাদকীয় নীতির সাথে সম্পুর্নভাবে মিলে যাবে এমন নয়। লেখকের কোনো লেখার বিষয়বস্তু বা বক্তব্যের যথার্থতার আইনগত বা অন্যকোনো দায় নারী কর্তৃপক্ষ বহন করতে বাধ্য নয়। নারীতে প্রকাশিত কোনো লেখা বিনা অনুমতিতে অন্য কোথাও প্রকাশ কপিরাইট আইনের লংঘন বলে গণ্য হবে।


মন্তব্য টি

লেখক পরিচিতি

প্রমা ইসরাত

আইনজীবী ও মানবাধিকার কর্মী

ফেসবুকে আমরা