ইসলাম বিদ্বেষের’ আদ্যাপান্ত

বুধবার, অক্টোবর ২, ২০১৯ ১০:০৪ PM | বিভাগ : মুক্তচিন্তা


ইহুদী জাতীয়তাবাদ বা জায়নবাদকে অত্যন্ত ঘৃণা স্বরূপ দেখা হয়। যারা সুশীল তারা নিজেদের কোনো সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে নয় এটা নিশ্চিত করতে বলেন, আমরা ইহুদীদের বিরোধী না, জায়নবাদের বিরুদ্ধে। তো জায়নবাদটা কি? অল্প কথায় জায়নবাদ হচ্ছে, ইহুদীদের স্বাতন্ত্র্য ইহুদী পরিচয় ধরে রাখা এবং অন্য জাতি সত্ত্বার মধ্যে মিশে না যাওয়া। জায়নবাদ থেকে ইহুদীদের নিজস্ব দেশ দাবী তোলা হয়। পৃথিবীর একমাত্র ইহুদী দেশ ইজরাইলের জন্ম ঘটে জায়নবাদের মাধ্যমে।

মুসলমানরা ইহুদী-ইজরাইলদের ঘৃণা করে ধর্মীয় কারণে। কিন্তু বাম, লিবারাল, সেক্যুলার, প্রগতিশীল সুশীলদের জায়নবাদের বিরুদ্ধে থাকার কারণ হচ্ছে বর্ণবাদী সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র চিন্তাকে পরিহার করা অবস্থান থেকে। কিন্তু আপনি কি কখনো তাদের কাছ থেকে ‘মুসলিম স্বাতন্ত্র্যবাদকে’ জায়নবাদের মতই ঘৃণা করতে দেখেছেন? ভারতবর্ষে মুসলিমরা কোনো জাতি সত্ত্বায় একভূত না হয়ে ‘মুসলিম’ পরিচয়ে থেকেছে। নিজেদের ‘মুসলিম জাতি’ পরিচয় দিয়েছে। সেখান থেকে দ্বিজাতি তত্ত্বে মুসলমানদের জন্য আলাদা দেশ চেয়েছে। জাতিসংঘে আজো তারা ৫৭টি ‘মুসলিম দেশ’ ‘মুসলিম জাতি’। মুসলিম অর্থনীতি, মুসলিম ব্যাংকিং, মুসলিম টুরিজম, মুসলিম খেলোয়ার, মুসলিম নেতা, মুসলিম বিজ্ঞানী, মুসলিম অভিনেতা- এগুলো জায়নবাদের ইহুদীদের স্বাতন্ত্র্যবাদের মতই মুসলিম স্বাতন্ত্র্যবাদ নয়?

আবদুল গাফফার চৌধুরী একবার লিখেছিলেন, জিন্না নয়, পাকিস্তানের জাতির পিতা হওয়া উচিৎ ছিলো শেরে বাংলা একে ফজলুল হকের কারণ তিনিই প্রথম লাহোর প্রস্তাব দিয়েছিলেন যার হাত ধরে পাকিস্তানের জন্ম হয়েছিলো। ইজরাইল যে দর্শন থেকে জন্ম নিয়েছিলো সেই একই রকম দর্শন থেকেই পাকিস্তানের জন্ম হয়েছিলো। যদি ইজরাইলের জন্য ফিলিস্তিনীদের ভূমি হারাতে হয়ে থাকে তাহলে পাকিস্তানের জন্য হিন্দুদের ভূমি হারাতে হয়েছে। রক্ত ঝরাতে হয়েছে আর শরণার্থী জীবন বেছে নিতে হয়েছে। জায়নবাদীদের পৃথিবীর লিবারালরা ঘৃণা করলেও ‘মুসলিম স্বাতন্ত্র্যবাদীদের’ বিষয়ে নৈবচ নৈবচ…! উল্টো যারা মুসলিম স্বাতন্ত্র্যবাদীদের সমালোচনা করে তারা হয়েছে এই সুশীলদের চোখে ‘মুসলিম বিদ্বেষী’!

ইমরান খান, এরদোয়ান নিজেরা ও তাদের দেশগুলো মুসলিম স্বাতন্ত্র্যবাদ জাহির করে। পাকিস্তানী তূর্কি আরবী বাঙালী ইত্যাদি পরিচয়গুলো অতিক্রম করে ‘মুসলিম বিশ্ব’ ‘মুসলিম ভ্রাতৃত্ব’ ‘মুসলিম উম্মাহ’ মুসলিমদের বিভিন্ন জাতি ও রাষ্ট্রে আত্মীকরণ করতে দিচ্ছে না। যদি এগুলো আপনার কাছে আত্মপরিচয় হয়ে থাকে তাহলে জায়নবাদকে সমালোচনা করার কোনো অধিকার কি আপনার আছে? রবীন্দ্রনাথ ইজরাইল রাষ্ট্রের জন্মে অনেক আগেই বলেছিলেন, ইহুদীদের ইউরোপে বিভিন্ন জাতি সত্ত্বায় মিশে যাওয়াই সঠিক সিদ্ধান্ত হবে। তা না করে ইহুদী পরিচয়ে কোনো জাতিরাষ্ট্র করাটা হীতে বিপরীত হবে…। নাস্তিকরা ঠিক এই কথাটাই বলে। মুসলিম স্বাতন্ত্র্যবাদের বিরোধীতা করে মুসলিম সম্প্রদায়কে নিজ নিজ জাতি সত্ত্বায় মিশে যেতে বলে। এসব বলার জন্যই আমরা ‘মুসলিম বিদ্বেষী’ ‘ইসলাম বিদ্বেষী’!

আরএসএস হিন্দুশ্রেষ্ঠত্ববাদ আর হিটলারের আর্য রক্তের বিশুদ্ধতা, জর্মানদের শ্রেষ্ঠ জাতি মনে করা ন্যাৎসিবাদকে সবাই ঘৃণা করে। কোনো সন্দেহ নেই এগুলো চরম আকারের ফ্যাসিস্ট চিন্তা ভাবনা। এই আর এস এসের কথাই যদি ধরি, ঠিক এইরকম ফ্যাসিস্ট চরিত্র ধারণ করে ইসলাম নামের ধর্মটি মুখে মুখে ‘শান্তির ধর্ম’ হিসেবে গণ্য হচ্ছে! কুরআনে অমুসলিমদের কুকুর, গাধা, মূর্খ, আহাম্মকসহ নানা রকম তাচ্ছিল্য করা হয়েছে। সেই দর্শন আজ ১৪০০ বছর ধরে চর্চার মাধ্যমে মুফতি মাওলানা শায়খুল হাদিস হওয়া লাগে। এসব নিয়ে চারদিকে কোনো হৈ চৈ আছে? পরিবেশটা কেমন শান্ত না?

… এই ভন্ডামীটার কথাই বারবার বলি। কোথাও জায়নবাদের পক্ষে কথা বলি না, কোথাও আরএসএসের হিন্দুত্ববাদের পক্ষে বলি না, শুধু ধরিয়ে দেই এদের মতই একই চরিত্র বা তারচেয়ে চুতিয়া ডিগ্রী বেশি ইসলাম সম্পর্কে কবিরা নিরব কেনো? এই যে ইসলামিক বাম প্রবাসী ভাইরা দেশে ইসলামিক সংস্কৃতি আর মুসলিম ইনসাফের রাষ্ট্র কামনা করছেন বা প্রচার চালাচ্ছেন তারা কোন মুখে জায়নবাদের নিন্দা করেন? আরএসএস নরেন্দ মোদী যে রকম সাম্প্রদায়িক জাতীয়তাবাদী সে রকম নিন্দা কেন ইমরান খান এরদোয়ানদের প্রাপ্য নয়? ট্রাম্প-মোদী-নেতানিয়াহু যা বিশ্বাস করে বা যা চায় তা তো ৫৭টা ‘মুসলিম দেশ’ ‘মুসলিম অর্থনীতি’, ‘মুসলিম ব্যাংকিং’, ‘মুসলিম টুরিজম’, ‘মুসলিম খেলোয়ার’, ‘মুসলিম নেতা’, ‘মুসলিম বিজ্ঞানী’, ‘মুসলিম অভিনেতা’ ‘হালাল শপ’… করে চলেছে! কোথাও তো দেখি না ফ্যাসিবাদের পদধ্বনি শোনা যাবার আশংকা করা হয়…।

‘ইসলাম বিদ্বেষ’ কেনো পৃথিবীর সব রকম বর্ণবাদী, সাম্প্রদায়িক, নারী বিদ্বেষী, মানবতা বিরোধী মত ও দর্শনকে ঘৃণা বিদ্বেষ করতেই হবে মানবিক সমাজ রাষ্ট্রের জন্য। ন্যাৎসিবাদের বিরুদ্ধে সবাই একমত হয়েছে এরকম দর্শন চিন্তা কারোর ব্যক্তি স্বাধীনতা, মত প্রকাশের স্বাধীনতা হতে পারে না। ন্যাৎসিবাদ বিদ্বেষী হলে আমি আপনি অপরাধী হবো না অন্য কারোর চোখে। তাহলে আপনি রাতদিন আমাকে ‘ইসলাম বিদ্বেষী’ বললে আমি কেনো বিব্রত হব? ইসলাম, জায়নবাদ, আরএসএস- এরকম যত সাম্প্রদায়িক রেসিস্ট জাতীয়তাবাদ আছে তা বিলুপ্ত হোক। কিন্তু একচোখা নিন্দুকদের লুঙ্গি খুলে দিলেই তারা রিভার্স খেলে, উল্টো আমাকেই জায়নবাদী-আরএসএস হিন্দুত্ববাদী বলে দাগিয়ে দেয়! এভাবে আর কতোদিন কমরেড?


  • ২৬০ বার পড়া হয়েছে

পূর্ববর্তী লেখা পরবর্তী লেখা

বিঃদ্রঃ নারী'তে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার বিষয়বস্তু, ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়া ও মন্তব্যসমুহ সম্পূর্ণ লেখকের নিজস্ব। প্রকাশিত সকল লেখার বিষয়বস্তু ও মতামত নারী'র সম্পাদকীয় নীতির সাথে সম্পুর্নভাবে মিলে যাবে এমন নয়। লেখকের কোনো লেখার বিষয়বস্তু বা বক্তব্যের যথার্থতার আইনগত বা অন্যকোনো দায় নারী কর্তৃপক্ষ বহন করতে বাধ্য নয়। নারীতে প্রকাশিত কোনো লেখা বিনা অনুমতিতে অন্য কোথাও প্রকাশ কপিরাইট আইনের লংঘন বলে গণ্য হবে।


মন্তব্য টি

লেখক পরিচিতি

সুষুপ্ত পাঠক

বাংলা অন্তর্জালে পরিচিত "সুষুপ্ত পাঠক" একজন সমাজ সচেতন অনলাইন একটিভিস্ট ও ব্লগার।

ফেসবুকে আমরা